প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভাই প্রহ্লাদ মোদি কি কারনে ধর্নায় বসলেন জানুন বিস্তারিত | Manikchak News - Manikchak News

Manikchak News

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভাই প্রহ্লাদ মোদি কি কারনে ধর্নায় বসলেন জানুন বিস্তারিত | Manikchak News

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভাই প্রহল্লাদ মোদি বুধবার মধ্যাহ্ন বেলায় লখনৌ এর AMAUSI এয়ারপোর্টে ধরনায় বসেন। উনি জানান তাহার সহযোগীদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অন্ন, জল ত্যাগের মাধ্যমে অনশনের হুমকি দিয়েছেন। আধিকারিকরা প্রহ্লাদ মনের কথা জানতে পেরে হতচকিত হয়ে যান। পুলিশ আধিকারিক কে ওনার কাছে পাঠানো হলে তিনি জানান যতক্ষণ না তার সহযোগীদের রেহাই করা হচ্ছে তখন তিনি কোন কথা শুনবেন না। অতঃপর প্রহ্লাদ মোদির সহযোগীদের মুক্তি দেওয়া হয় এবং তিনি তাদের সকলকে নিয়ে হোটেলে রওনা দেন।

prahlad modi call strike
 

প্রহ্লাদ মোদির বক্তব্য

বিশ্ব হিন্দু মহাসংঘ এবং অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ অ্যাসোসিয়েশনের উপাধ্যক্ষ দিল্লি থেকে দুপুর ২ টোর ফ্লাইট ধরে রাজধানী পৌঁছেছিলেন। প্রহ্লাদ মোদিকে যোগ সোশ্যাল সোসাইটির পক্ষ থেকে সুলতানপুর এবং জৌনপুরে সংবর্ধনা জানানোর ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু পুলিশ একদিন পূর্বেই উক্ত সোসাইটিকে বেআইনি বলে তার সদস্যদের গ্রেফতার করে। সহযোগীদের গ্রেপ্তারের কথা কানে আসতেই নড়েচড়ে বসেন প্রহ্লাদ মোদি। তিনি জানান তাঁর সহযোগীরা মুক্তি না পাওয়া পর্যন্ত তিনি ধর্মা চালিয়ে যাবেন।

আরোও পড়ুনঃ CBSE বোর্ড দ্বারা প্রকাশিত হল দশম ও দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষার রুটিন। বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন
 

প্রহ্লাদ মোদি জানান, পুলিশ আধিকারিকদের বক্তব্য যে তারা প্রধানমন্ত্রীর আদেশ মেনে সোসাইটির সদস্যদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তখন প্রহ্লাদ মোদি প্রধানমন্ত্রীর সেই আদেশের কপি দেখার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, জোরপূর্বক অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি করা কারো পক্ষে লাভজনক নয়।

রধানমন্ত্রীর ভাই হওয়ায় প্রহলাদ মোদির ধর্নায় রীতিমতো হতভম্ব হয়ে গেছিল পুলিশ প্রশাসন। পুলিশ আধিকারিক অনেক বোঝানোর চেষ্টা করলেও প্রহ্লাদ মোদি নিজের সিদ্ধান্তে অনড় ছিলেন। তিনি জেদ ধরে বসে ছিলেন তার সহযোগীরা ছাড়া না পেলে অনশনসহ ধর্নায় বসবেন। পরে পুলিশ আধিকারিক প্রহ্লাদ মোদির সমর্থকদের মুক্তি দেয়।

 

Previous article
Next article

Leave Comments

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Articles Ads

Articles Ads 1

Articles Ads 2

Advertisement Ads